শৃঙ্খলার আলো

৫ মাসেই কারিশমা দেখাচ্ছেন ওসি আসলাম

সরাইল থানার ওসি আসলাম হোসেনের তৎপরতায় এলাকার আইন-শৃঙ্খলা এখন আশানুরূপ উন্নতির দিকে।

আইনশৃঙ্খলায় নানামুখী উন্নয়নে বদলে যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার চিত্র। সরাইল থানার ওসি আসলাম হোসেনের তৎপরতায় এলাকার আইন-শৃঙ্খলা এখন আশানুরূপ উন্নতির দিকে। গত ১২ মে তিনি এই থানায় যোগদান করেন। মাত্র সাড়ে ৫ মাসে তিনি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন।

জানা গেছে, সরাইল থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে আসলাম হোসেন যোগদানের পর এখানে কমে গেছে মাদকের ভয়বহতা, খুন-খারাপি, অপহরণ, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইসহ চাঁদাবাজির ঘটনা। বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বস্তিবোধ করছেন উপজেলার সকল শ্রেণীপেশার মানুষ। তাঁর এই সফলতাকে সাধুবাদ জানিয়েছে সর্বস্তরের জনসাধারণ।

গত কয়েকদিনে সরেজমিনে ঘুরে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, হঠাৎ করেই পাল্টে গেছে সরাইলে অপরাধ প্রবণতা। পাল্টে গেছে এ উপজেলার দৃশ্যপট। গা ঢাকা দিয়েছে অনেক অপরাধী। অপরাধীদের কেউ কেউ পেশা পাল্টে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে শুরু করেছে। পুলিশের কৌশলী ভূমিকার কারণেই ভেঙ্গে পড়েছে অপরাধীচক্রের নেটওয়ার্ক। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির এই উন্নতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন অনেকে। শান্তিপ্রিয় মানুষ অনেকে দাবি করছে এটি সম্ভব হয়েছে বর্তমান ওসি’র কারিশমায়।
স্থানীয় সচেতন মহল বলছেন, উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে অসাধারণ ভূমিকা রয়েছে সরাইল থানা পুলিশের। বিশেষ করে থানার ওসি আসলাম হোসেনের যোগদানের পর অপরাধ দমনে তাঁর আন্তরিকতার প্রমাণ মিলেছে।

কালিকচ্ছ ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত আলীসহ উপজেলার একাধিক জনপ্রতিনিধি জানান, সরাইল থানার বর্তমান অফিসার ইনচার্জ যোগদানের মাত্র সাড়ে ৫ মাসেই বদলিয়ে দিয়েছেন উপজেলার চিত্র। সরাইল উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে পুলিশী তৎপরতা জোরদার থাকায় অতীতের তুলনায় অপরাধ কর্মকান্ডের সংখ্যা এখন অনেক কম।

ইউপি সদস্য অরবিন্দ দত্ত বলেন, এক সময় যেখানে রাতে গ্রামীণ সড়কে চলাচলকারী মানুষকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সর্বস্ব লুটে নিত ডাকাত-ছিনতাইকারীরা। বর্তমানে আইনশৃংখলা ভাল হওয়ায় সে দৃশ্যপট পাল্টে গেছে। গত কয়েক মাসে এখানে পুলিশের অভিযানের মুখে ভয়ংকর দাগী অপরাধীরা এলাকা ছাড়া হওয়ায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় মানুষ অনেকের দাবি, সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ আসলাম হোসেন কয়েক মাস আগে এখানে দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে চোর, ডাকাত, মাদক, জঙ্গী, ইভটিজিং, নাশকতা সৃষ্টিকারীর বিরুদ্ধে যে ধরনের ভূমিকা নিয়ে কাজ করেছেন তা অবশ্যই প্রশংসনীয়। এছাড়াও পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে চোর, ডাকাত, মাদক দ্রব্য বিক্রেতা, মাদক সেবনকারী, ইভটিজিং ও নাশকতা সৃষ্টিকারীদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। আইন শৃংখলা পরিস্থিতির এই উন্নতি হওয়ায় সাধারণ মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। তিনি যোগদানের পর থেকে থানায় দালালদের দৌরাত্ম নেই। নিয়মিত মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেফতার রয়েছে অতীতের তুলনায় অনেক বেশি।

সরাইল থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আসলাম হোসেন জানান, জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ন্যায় ও নিষ্ঠার সঙ্গে আজীবন কাজ করে যাব। সরাইল থানাকে সব ধরণের অপরাধমুক্ত ও একটি আদর্শ থানা হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে কাজ শুরু করেছি। এ ধারা অব্যাহত থাকবে। তিনি সরাইলের সার্বিক আইনশৃংখলা ভাল রাখার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

পুবের আলো/সুমন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button